মানিক ইস্যুতে ক্ষুব্ধ বিএনপির হাইকমান্ড

0
2870

স্টাফ রিপোর্টার, টুডে বাংলা ২৪:  সদ্য ঘোষিত রাজবাড়ী জেলা বিএনপির কমিটিতে মনিরুজ্জামান গাজী মানিক এর নাম না থাকায় ক্ষোভ জানিয়েছে বিএনপি হাইকমান্ড। মানিক ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের সহ-সভাপতি ও ঢাকা কলেজ ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি। মানিকের গ্রামের বাড়ি রাজবাড়ীতে।

রাজবাড়ী জেলা বিএনপির কমিটিতে সম্মানসূচক সদস্য পদ থাকা উচিত ছিলো বলে মনে করেন সিনিয়র নেতারা।

সোমবার বিকালে ঘোষিত কমিটিতে এই নেতার নাম না দেখে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন ছাত্রদল কেন্দ্রীয় নেতারা। ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সহ-সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম মিঠু জানান, রাজবাড়ী জেলা থেকে এ যাবৎকালে কেন্দ্রীয় কোন সংগঠনে সবচেয়ে বড় পদ পেয়েছেন মনিরুজ্জামান গাজী মানিক। আর তাঁর নাম জেলা কমিটির সদস্য পদে না থাকা জেলার নেতাদের জন্য লজ্জার।

এ নিয়ে নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়েও বিক্ষোভ দেখিয়েছেন ছাত্রদরের নেতাকর্মীরা। পরে কার্যালয়ে উপস্থিত বিএনপি নেতারা বলেন, কমিটিতে মানিকের নাম আছে এটা তারা জানতেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত কিভাবে বাদ গেলো তা বিস্ময়কর। বিষয়টি সিনিয়র নেতাদের জানালে তারাও ক্ষোভ জানান।

এ নিয়ে মনিরুজ্জামান গাজী মানিক বলেন, ‘এখনই আমি জেলায় রাজনীতিতে পদ চাই না। তাই জেলার পদ নিয়ে তেমন ভাবনা নেই। আমি কেন্দ্রীয় রাজনীতি করি। এখান থেকেই জেলার জন্য কাজ করে যাচ্ছি। দলের যে কোন প্রয়োজনে আমি জেলায় ছুটে যাই। তৃণমূলের সাথে সব সময় যোগাযোগ রেখে কাজ করি এবং করতে চাই।‘

এ নিয়ে নতুন কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক রাজবাড়ী সরকারি কলেজের সাবেক ভিপি এ কে এম সিরাজুল আলম চৌধুরী বলেন, ‘ মানিক রাজবড়ীর গর্ব। জেলা কমিটিতে তার নাম থাকলে কমিটির সৌন্দর্য বৃদ্ধি পেত। সম্মানসূচক সদস্য পদ না থাকা লজ্জার।“

এ বিষয়ে জানতে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হারুন-অর-রশীদ বলেন, “মনিরুজ্জামান গাজী মানিকের নাম কমিটিতে ছিলো। কিন্তু ভুল করে তার নামটা বাদ হয়ে গেছে। এখন কিভাবে বাদ পড়লো তা দেখা হচ্ছে। ” তিনি বলেন, মানিক নিজেই কমিটিতে থাকতে চাচ্ছে না।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে নতুন কমিটির এক সহ-সভাপতি বলেন, মনিরুজ্জামান গাজী মানিক জাতীয় পর্যায়ের ছাত্রনেতা। এলাকাতেও তার বেশ জনপ্রিয়তা রয়েছে। আগামী জাতীয় নির্বাচনে প্রার্থী হিসেবে এলাকায় মানিকের নাম প্রচার শুরু হওয়ায়, ইচ্ছে করে কেউ নাম বাদ দিতে পারে।

কমিটিতে নাম থাকার পরও কিভাবে তা শেষ পর্যন্ত বাদ পড়লো এ বিষয় জানতে নতুন কমিটির সভাপতি আলী নেওয়াজ মাহমুদ খৈয়াম এর মোবাইল ফোনে কল দেয়া হলে তিনি রিসিভ কনেননি।

এদিকে, জেলা ছাত্রদলের সাবেক সহ-সভাপতি ও কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সদস্য ফারজানা ইয়াসমিন লিপির নামও এই কমিটিতে না রাখার সমালোচনা চলছে জেলার রাজনীতিতে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here