দুবাই ভিসা চালুর খবর ও সতর্কতা (ভিডিওসহ)

0
3455

টুডে বাংলা ২৪(দুবাই): বিদেশে শ্রমবাজারের মধ্যে সংযুক্ত আরব আমিরাত বাংলাদেশিদের কাছে বেশ আকর্ষণের একটি দেশ। কিন্তু ২০১২ সালের পর থেকে দেশটিতে কর্মী যাওয়া বন্ধ হয়। এরপর থেকে কয়েক দফায় চেষ্টা করেও কোন সমাধান হয়নি। তবে ভিতরে ভিতরে গৃহখাতে কর্মী যেতো দেশটিতে। এবার এই খাতে বৈধভাবে কর্মী পাঠাতে সমঝোতা সই হয়েছে। তাদের দেশটিতে নতুন আইন অনুসারে কর্মীদের সুরক্ষার বিষয়টিও নিশ্চিত করা হবে।

১৮ এপ্রিল বুধবার দুবাইতে বাংলাদেশ ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের মধ্যে সমঝোতা স্মারক সই হয়। এতো করে শুধু গৃহখাতের ১৯ ক্যাটাগরিতে বাংলাদেশ থেকে কর্মী পাঠানোর সুযোগ হল। এই কর্মী সরকারিভাবে পাঠানো হবে। যে ১৯ ক্যাটাগরির কর্মী নেবে আরব আমিরাত সেগুলো হলো:

১.গৃহ পরিচালক।

২.ব্যক্তিগত নাবিক।

৩.বাড়ি দেখা শুনার কর্মী ও নিরাপত্তা কর্মী।

৪.ঘরের মেষ পালক।

৫.পারিবারিক গাড়ির ড্রাইভার।

৬.গাড়ির পার্কিং পরিষ্কার।

৭.গৃহ পালিত ঘোড়ার রক্ষক।

৮.গৃহ পালিত বাজপাখি’র রক্ষক ও প্রশিক্ষক কর্মী।

৯.ঘরের ভিতরের কর্মী।

১০.বাড়ির কেয়ার টেকার কর্মী।

১১.ব্যক্তিগত প্রশিক্ষক।

১২.ব্যক্তিগত শিক্ষক।

১৩.বাচ্চা-দের সেবক।

১৪.বাড়ির আভ্যন্তরীণ কৃষক।

১৫.বাড়ির মালি।

১৬.ব্যক্তিগত নার্স।

১৭.ব্যক্তিগত পি-আর-ও-(P.R.O- Personal relationship officer.)

১৮.ব্যক্তিগত কৃষি ফার্মের প্রকৌশলী।

১৯.ঘরের বাবুর্চি।

এর বাইরে কোন কাজের ভিসা চালু করেনি আরব আমিরাত।

আরব আমিরাতে ২ ধরনের ভিসা বের হয়।তা হলোঃ– 01- Ministry of Labour, 02- Ministry of Immagration. 01- Ministry of Labour বা শ্রম মন্ত্রনালয়ের ভিসা সমুহ ২০১২ সালের আগষ্ট থেকে বাংলাদেশীদের জন্য বন্ধ রয়েছে. 02- Ministry of Immagration. এর ভিসা সমুহ আগে ও চালু ছিল, এখনো চালু আছে, এ ভিসা গুলো হচ্ছে বাসাবাড়ির ভিসাসহ সরকারী কাজের সাথে সম্পৃক্ত ভিসা গুলো। তবে বিদ্যমান অন্য ভিসা পরিবর্তনের বিষয়ে কোন সুযোগ এখনো দেয়নি দেশটি। তাই দালালের খপ্পরে পড়ে ভিসার জন্য অগ্রিম কোনো লেনদেন করার বিষয়ে সকলকে সতর্ক থাকতে হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here